১৫০০ : দু’আ কবুলের শ্রেষ্ঠ সময়

আবু উমামা (রাদিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন,

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলা হলো, কোন দু’আ বেশি কবুল হয়?

তিনি বলেন, শেষ রাতের মধ্যকালের ও ফরয নামাজের পরের দু’আ।

[ইমাম তিরমিযী হাদিসটি বর্ণনা করেছেন এবং একে হাসান হাদিস বলেছেন]

রিয়াদুস সলিহীন # ১৫০০


১৭৪২ : পুরুষের সামনে মেয়েদের শারীরিক সৌন্দর্য বর্ণনা করা নিষেধ

কোন শরীয়াত সম্মত কারণ বা প্রয়োজন ছাড়া পুরুষ লোকদের নিকট কোন নারীর শারীরিক সৌন্দর্যের বর্ণনা দেয়া নিষেধ। তবে বিবাহ-শাদী বা এ জাতীয় কোন প্রয়োজনে শারীরিক গঠন-প্রকৃতির বর্ণনা দেয়া জায়েজ।

আব্দুল্লাহ ইবনে মাস’উদ (রাদিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,

"কোন নারী যেন তার অনাবৃত শরীর অন্য কোন নারীর অনাবৃত শরীরের সাথে না লাগায় এবং সে যেন তার (অপর নারীর) শারীরিক সৌন্দর্য নিজের স্বামীর নিকট এমনভাবে বর্ণনা না করে, যেন সে তাকে সচক্ষে দেখছে।" [বুখারী ও মুসলিম]

# রিয়াদুস সলিহীন: ১৭৪২


১১৮৩ : তাহাজ্জুদের নামায

আবু হুরাইরা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, "আল্লাহ সেই ব্যক্তির প্রতি সদয় হোন, যে রাতে ঘুম থেকে জেগে উঠে তাহাজ্জুদের নামায পড়ে এবং তার স্ত্রীকেও জাগায়, আর স্ত্রী যদি উঠতে দ্বিধা করে তাহলে তার মুখে পানি ছিটিয়ে দেয়। আল্লাহ সেই মহিলার প্রতি সদয় হোন, যে রাতে ঘুম থেকে উঠে তাহাজ্জুদের নামায পড়ে এবং নিজের স্বামীকেও জাগায়, আর স্বামী উঠতে দ্বিধা করলে তার মুখে পানি ছিটিয়ে দেয়।"

# রিয়াদুস সলিহীন : ১১৮৩

[ইমাম আবু দাউদ সহীহ সনদে এ হাদীস রিওয়ায়াত করেছেন]


৪৫৮ : পার্থিব জীবন প্রতারণার উপকরণ বৈ কিছু নয়

"তোমরা জেনে রাখ, পার্থিব জীবন ক্রীড়া-কৌতুক, সাজ-সজ্জা, পারস্পরিক অহমিকা এবং ধন ও জনের প্রাচুর্য ব্যতীত আর কিছু নয়, যেমন এক বৃষ্টির অবস্থা, যার সবুজ ফসল কৃষকদেরকে চমৎকৃত করে, এরপর তা শুকিয়ে যায়, ফলে তুমি তাকে পীতবর্ণ দেখতে পাও, এরপর তা খড়কুটা হয়ে যায়। আর পরকালে আছে কঠিন শাস্তি এবং আল্লাহর ক্ষমা ও সন্তুষ্টি। পার্থিব জীবন প্রতারণার উপকরণ বৈ কিছু নয়।" [সূরা আল হাদীদ: ২০]

"নারী, সন্তান-সন্ততি, পুঞ্জিভুত সোনা-রূপা, চিহ্নিত ঘোড়া, গবাদি পশু ও শস্যক্ষেত-খামারের প্রতি আকর্ষণ মানুষের নিকট সুশোভিত করা হয়েছে। এগুলো দুনিয়ার জীবনের ব্যবহারিক উপকরণ। আর আল্লাহ, তাঁর নিকটই তো রয়েছে উত্তম প্রত্যাবর্তন।" [সূরা আলে-ইমরান: ১৪]

আবু সাঈদ আল খুদরী (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) মিম্বারে বসলেন এবং আমরা তার চারপাশে বসলাম। তিনি বলেন:

"আমার পরে যে বিষয়গুলো সম্পর্কে তোমাদের জন্য আমার ভয় হচ্ছে তা হলো, (বিভিন্ন দেশ জয়ের পর) তোমরা যে পার্থিব চাকচিক্য ও সৌন্দর্য লাভ করবে (অর্থাৎ বিভিন্ন দেশ জয়ের পরে তোমাদের হাতে যখন প্রাচুর্য আসবে, তোমরা তখন পার্থিব বস্তুর পেছনে ধাবিত হবে, এটাই আমার বড় আশংকা।" [বুখারী, মুসলিম]

# রিয়াদুস সলিহীন ৪৫৮


৬১ : ভালো কাজ মন্দ কাজকে নিশ্চিহ্ন করে দেয়

আবু যার (রাদিয়াল্লাহু আনহু)ও মু’আজ ইবনে জাবাল (রাদিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন:

“তুমি যেখানেই থাকো আল্লাহকে ভয় করো এবং অসৎ কাজ করলে তার পরপর সৎ কাজ করো। তাহলে ভালো কাজ মন্দ কাজকে নিশ্চিহ্ন করে দেবে। আর মানুষের সাথে সদ্ব্যবহার করো।”

[ইমাম তিরমিযি এ হাদীস বর্ণনা করেছেন এবং একে হাসান হাদীস বলেছেন]

# রিয়াদুস সলিহীন : ৬১


৬৬ : নফসের হিসাব

শাদ্দাদ ইবনে আওস (রাদিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত, নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন:

“বুদ্ধিমান সেই ব্যক্তি যে তার নফসের হিসাব নেয় (আত্ম-সমালোচনা করে)এবং মৃত্যুর পরের জীবনের জন্য কাজ করে। আর দুর্বল ঐ ব্যক্তি যে নিজেকে কুপ্রবৃত্তির গোলাম বানায়, আবার আল্লাহর কাছে প্রত্যাশাও করে।”

[ইমাম তিরমিযি এ হাদিস বর্ণনা করেছেন এবং একে হাসান অ্যাখ্যা দিয়েছেন]

# রিয়াদুস সলিহীন: ৬৬


১০০ : ‘যদি’ শব্দটি শয়তানের কাজের দরজা খুলে দেয়

আবু হুরাইরা (রাদিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন:

"শক্তিশালী মু’মিন আল্লাহর নিকট দুর্বল মু’মিনের চেয়ে বেশি ভালো ও বেশি প্রিয়। আর প্রত্যেকের মধ্যেই কল্যাণ রয়েছে। যা তোমার জন্য উপকারী তার প্রতি লোভ কর এবং আল্লাহর কাছে সাহায্য চাও, দুর্বল হয়ো না। যদি তোমার কোন বিপদ আসে তবে এ কথা বলো না যে, যদি আমি এরূপ করতাম তাহলে ঐরূপ হতো। বরং এ কথা বলো যে, আল্লাহ তাকদীরে এটাই রেখেছেন এবং তিনি যা চান তাই করেন। কেননা, ‘যদি’ শব্দটি শয়তানের কাজের দরজা খুলে দেয়।" [মুসলিম]

# রিয়াদুস সলিহীন : ১০০